Thursday , June 20 2019
Home / এসইও / গুগল অ্যালগরিদম কি | গুগল অ্যালগরিদম আপডেট এ কি করবেন, কি করবেন না
Google Algorithms

গুগল অ্যালগরিদম কি | গুগল অ্যালগরিদম আপডেট এ কি করবেন, কি করবেন না

​গুগল অ্যালগরিদম (Google Algorithm) এই শব্দটির সাথে এসইও ইন্ডাস্ট্রি তে যারা কাজ করছেন তারা সবাই কম-বেশী পরিচিত আছেন। কিন্তু আবার এমনও অনেকে আছেন যারা এই ​গুগল অ্যালগরিদম এর সম্পর্কে সঠিক ভাবে জানেন না। যদিও গুগল সার্চ ইঞ্জিন নিয়ে কাজ করতে হলে আপনাকে খুব ভালো ভাবে জানতে হবে যে গুগল কিভাবে কাজ করে আর এটা বুঝতে হলে আপনাকে অ্যালগরিদম বুঝতে হবে। তো একারনেই আজ আমার আলোচনার বিষয় গুগল অ্যালগরিদম।

আশা করছে আপনাদের সকলকে এটি সম্পর্কে একটি স্বচ্ছ ধারনা দিতে পারবো, তারপরেও যদি আপনাদের কোন প্রশ্ন থেকে যায় তাহলে অবশ্যই কমেন্টের মাধ্যমে আমাকে জানাবেন। আমি চেষ্টা করবো আপনাদের সকল প্রশ্নের উত্তর দেয়ার জন্য। 

আজকের আলোচ্য বিষয় গুলি হচ্ছে:

তাহলে চলুন মূল আলোচনা শুরু করা যাক, প্রথমেই-

​গুগল অ্যালগরিদম কি?


​গুগলের অ্যালগরিদম হচ্ছে একটি জটিল প্রক্রিয়া যার মাধ্যমে গুগল অনলাইন ওয়েব থেকে বিভিন্ন তথ্য অনুসন্ধান করে এবং সেগুলি গুগল ইনডেক্স এ সংরক্ষণ করে এবং যখন কেউ গুগল সার্চ ইঞ্জিন এ কিছু লিখে সার্চ করে তখন  সর্বোত্তম সম্ভাব্য ফলাফলগুলি তার ইনডেক্স থেকে অবিলম্বে প্রদান করে।

আর সহজ ভাবে বললে, অ্যালগরিদম হচ্ছে একগুছ কোড বা নীতি যার মাধ্যমে গুগল তার সকল কাজ সঠিক ভাবে সম্পন্ন করে থাকে।

​আবার এভাবে বলা যায় যে, গুগল অ্যালগরিদম এমন একটি উপায় যার মাধ্যমে গুগল ডিসিশন নেয় যে সার্চ ​ইঞ্জিন রেজাল্ট পেজ (SERPs) এ কোনো রেজাল্ট টি আগে দেখানো হবে।

​উদাহরন হিসেবে ধরা যাক, আপনার একটা ওয়েবসাইট আছে, সেখানে আপনি DOG (কুকুর) নিয়ে লেখা লেখি করেন। আপনি একটা পোষ্ট লিখলেন “Best Dog Food” নিয়ে। আপানার পোষ্ট টি গুগলের ৫ নাম্বার পেজে আছে। কিন্ত আরকটা ওয়েবসাইটে ঠিক সেম টপিক “Best Dog Food” নিয়ে আর্টিকেল পাবলিশ হয়েছে এবং সেটা গুগলের ১ম পেজের ১ম রেজাল্টে আছে। 

আপনার ওয়েবসাইট ৫ম  পেজে এবং অন্য ওয়েবসাইট ১ নাম্বার রাখার পেছনে বিভিন্ন ধরনের প্রক্রিয়া বা ফ্যাক্টর আছে যা গুগল অ্যালগরিদম হিসেবে পরিচিত।

​আমার কথা শুনে যদি আপনার মনে হয়ে থাকে যে অ্যালগরিদম এর কাজ শুধু এটিই, তাহলে আপনি বুঝতে একটু ভুল করছেন। গুগল এর অনেক অ্যালগরিদম আছে, এবং প্রতিটি অ্যালগরিদম এর কাজ ভিন্ন। কেউ কাজ করছে সার্চ নিয়ে, কেউ কাজ করছে রাঙ্কিং নিয়ে, আবার কেউ কাজ করছে ইনডেক্সিং নিয়ে, অর্থাৎ একটি নির্দিষ্ট কাজের জন্য একটি নির্দিষ্ট অ্যালগরিদম। আশা করছি এবার বিষয়টি পরিষ্কার হয়েছে।

গুগল একটি ওয়েবসাইট কে কোন কোন বিষয়ের উপর ভিত্তি করে রাঙ্ক দেয় অর্থাৎ গুগল রাঙ্কিং ফ্যাক্টর সম্পর্কে জানতে হলে নিচের কন্টেন্ট গুলি দেখতে পারেন-

​Join with my online training

​Build your online career with SEO or Affiliate Marketing.

​অ্যালগরিদম আপডেট কেনো হয়?


গুগল সব সময়ই চায় তার ভিজিটরদের সঠিক এবং রিলেভেন্ট রেজাল্ট টি দেখাতে। এজন্য তারা সব সময় একটি আপডেট প্রক্রিয়ার মধ্যে দিয়ে যায়। তাই বলা যেতে পারে একুরেট এবং রিলেভেন্ট রেজাল্ট কে সার্চ রেজাল্টে রাখার জন্যই গুগল তার অ্যালগরিদম আপডেট করে থাকে।

​একটা সময় ছিলো যখন গুগলে ওয়েবসাইট র‌্যাংক করানো খুব সহজ ছিলো। কীওয়ার্ড স্টাফিং করে কন্টেন্ট দিয়ে স্প্যামি লিংক দিয়ে সাইট র‌্যাংক করানো যেতো। কিন্ত পাণ্ডা (অ্যালগরিদম) আপডেটের পর গুগল কোয়ালিটি কন্টেন্ট সার্চ রেজাল্টে রেখে লো-কোয়ালিটি কন্টেন্ট গুলোকো সার্চ রেজাল্টের নিচে পাঠিয়ে দিয়েছে। যাতে করে ভিজিটর সবসময় বেস্ট রেজাল্টটি খুঁজে পায়।

গুগলের কিছু কোর অ্যালগরিদম এবং এদের কাজ


​গুগলের মোট কতগুলো অ্যালগরিদম আছে এ ব্যাপারে একুরেট কোনো তথ্য জানা যায় না। তবে ধারনা করা হয় এ সংখ্যাটা ১০০ এর নিচে না।  শুনলে হয়তো অবাক হবেন প্রতি বছর গুগল ৫০০-৬০০ ​বার অ্যালগরিদমে  বড় ছোট আপডেট আনে। তবে সব গুলোই বড় আপডেট নয়। চলুর গুগলের কিছু কোর অ্যালগরিদম এবং এর কাজ সম্পর্কে জেনে নেই।

Google Core Algorithms Infographic

গুগল কোর অ্যালগরিদম আপডেট জুন  ২০১৯


​প্রতিবছরই গুগল একটি  বড় অ্যালগরিদম আপডেট দিয়ে থাকে। যা গুগল কোর অ্যালগরিদম আপডেট হিসেবে পরিচিত। বড় এই আপডেট গুলোর আগে এবং পরে গুগল নিজ থেকেই আপডেট সম্পর্কে নিশ্চিত করে। ঠিক এবছরও জুনের শুরুতে গুগল তাদের কোর অ্যালগরিদম আপডেট করেছে।

google core algorithm update

​জুন  এর ২ তারিখ টুইটারের মাধ্যমে গুগল নিশ্চিত করে যে  ৩ তারিখ থেকে তারা এবছরের সবথেকে বড় অ্যালগরিদম আপডেট করবে। যা ব্রড কোর অ্যালগরিদম আপডেট হিসেবে পরিচিত।

গুগল অ্যালগরিদম আপডেট এবং সাইট পারফর্মেন্স


​যারা SEO এর জন্য ব্ল্যাক হ্যাট বা গ্রে হ্যাট টেকনিক ইউজ করে তাদের জন্য অ্যালগরিদম আপডেট সব সময় ই দুশ্চিন্তার কারন। তবে অ্যালগরিদম আপডেট হলে যে সব সময়ই খারাপ হয় তা নয়। অনেক সময় ভালো র‌্যাংক ও হয়।

wirecutter-analytics

​এই স্ক্রিনশট টি খুব ভালো ভাবে খেয়াল করুন। এটি বিশ্বখ্যাত এফিলিয়েট ওয়েবসাইট ওয়্যারকাটার যার মালিক কিনা “New York Times”। এখানে দেখতে পাচ্ছেন গত ৭দিনে এই ওয়েবসাইটে এক লাফে প্রায় ২ লক্ষ ভিজিটর বেড়েছে, যেটা রানিং অ্যালগরিদম আপডেটের সুফল।

health-ambition-analytics

​আবার এই সাইটটি খেয়াল করুন। ওয়েবসাইট টির নাম হেলথ এম্বিশন, এটি খুবই জনপ্রিয় অথরিটি হ্যাকার টিমের নিজস্ব ওয়েবসাইট। সাইট টি গত বছর আগস্ট এর মেডিক আপডেটে ​মারাত্বক ভাবে আক্রন্ত হয়েছে। ১ লক্ষ ৬৪ হাজার ভিজিটর থেকে রাতারাতি ট্রাফিক ৫ হাজার হয়ে গিয়েছিলো।  যদিও তারা সাইট টি রিকভার করার চেষ্টা করেছে কিন্ত তার ফল স্বাভাবিকের তুলনায় খুবই সামান্য।

গুগল অ্যালগরিদম আপডেট এ আপনার করনীয় কি?


গুগল অ্যালগরিদম যখন আপডেট হয় তখন সকল সাইট মালিকেরা একটু চিন্তার মধ্যেই থাকে, কারন এসময় ওয়েবসাইট এর র‌্যাংকিং ভালো হতে পারে আবার খারাপও হতে পারে। তো আসুন জেনে নেই এরকম গুগল অ্যালগরিদম আপডেটের সময় আমাদের করণীয় কি?

  • সর্বপ্রথম আপনি আগে নিশ্চিত হোন যে কবে ​গুগল অ্যালগরিদম আপডেট রিলিজ হবে, কারন এই দিনটি জেনে রাখা আপনার জন্য অনেক জরুরী। এই আপডেটের সঠিক তথ্য পাবার জন্য আপনি গুগল ওয়েবমাষ্টার হেল্প কমিউনিটি তে চোখ রাখতে পারেন।
  • ​আপনি যখন আপডেটের তারিখটি সম্পর্কে নিশ্চিত হলেন তখন ঐ তারিখ আসার কিছুদিন আগে থেকেই আপনার সাইটে নতুন করে কোনো পরিবর্তন করবেন না।
  • ​আপডেট তারিখের সপ্তাহ খানেক আগে থেকেই নিয়মিত গুগল সার্চ কনসোল এবং গুগল এ্যানালাইটিক্স এ দৈনিক ভিজিটর এবং কি-ওয়ার্ড র‌্যাংকিং লক্ষ্য করুন।
  • ​এভাবে করে আপডেট আসার আগের এক সপ্তাহ এবং আপডেটের পরে ২-৩ সপ্তাহ এর ট্রাফিক ডাটা লক্ষ্য করুন। এবং এ সময়ে ওয়েব সাইটে বড় কোনো পরিবর্তন না করাই ভালো।

কিভাবে একটি সাইট কে গুগল সার্চ কনসোল এবং গুগল এ্যানালাইটিক্স এ অ্যাড করবেন তা জানতে ভিডিও টিউটোরিয়ালটা দেখতে পারেন।

গুগল ​পেনাল্টি কি ​?


​গুগল ​পেনাল্টি (Google Penalty) হচ্ছে, কোনো ওয়েবসাইটকে​ সম্পূর্ণ বা আংশিক ভাবে গুগল ইনডেক্স থেকে বা গুগল রেজাল্ট পেজ থেকে সরিয়ে দেয়া। এখন সেটি হতে পারে পুরো ​ওয়েবসাইট এর জন্য বা কিছু নির্দ্দিষ্ট পেজের জন্য বা কিছু নির্দ্দিষ্ট স্প্যামি কি-ওয়ার্ডের জন্য। এই পেনাল্টি হতে পারে ম্যানুয়ালি গুগল ওয়েব স্প্যাম টিম দ্বারা আবার, হতে পারে অটোমেটিক অ্যালগরিদম আপডেট দ্বারা। 

Google Penalty

​কিভাবে আপনি একটি দণ্ডিত (পেনাল্টি) ওয়েবসাইট সনাক্ত করবেন?


  • ​আপনি ওয়েবসাইটের ওয়েবমাষ্টার টুল (Google Search Console) এ লগিন করুন, বাপাশের মেনু থেকে আপনি ​ম্যানুয়াল এ্যাকশান (Manual actions) এই অপশনে দেখলেই বুঝতে পারবেন​ যে আপনার সাইটকে কোনো পেনাল্টি দেয়া হয়েছে কিনা।
  • ​আকস্মিক ভাবে আপনার সাইটের ট্রাফিক কমতে থাকলে বুঝতে হবে এবং সেই সময়ে কোনও আপডেট রিলিজ হলে চেক করুন।
  • ​আপনার ডোমেন নামটি গুগল সার্চ বারে লিখুন এবং দেখুন যে আপনার ডোমেনটি প্রথম দিকে দেখায় কি না। যদি না দেখায় তাহলে বুঝতে হবে যে সাইটি পেনাল্টিতে পরেছে।
  • ​আপনার বিভিন্ন পেজের র‌্যাংকিং চেক করুন দেখুন আগের মতো আছে কি না।

​যে কারনে গুগল আপনাকে শাস্তি (পেনাল্টি) দিতে পারে


গুগল কেন একটি ওয়েবসাইট কে পেনাল্টি দিয়ে থাকে? এর কারন অনুসন্ধান করলে অনেক বিশাল একটি লিস্ট তৈরি হবে। নিচে কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ কারন তুলে ধরা হল-  

  • আপনি যদি আপনার ওয়েবসাইট এ ব্ল্যাকহ্যাট এসইও টেকনিক যেমনঃ ক্লকিং, রি-ডিরেকটিং করে থাকেন।  
  • ডুপ্লিকেট কন্টেন্ট বা থিন কন্টেন্ট (যে সকল কন্টেন্ট এ তথ্য অনেক কম থাকে) এর কারনে আপনার সাইট পেনাল্টি পেতে পারে।
  • ওয়েবসাইট লোডিং টাইম অনেক বেশী হলে আপনার সাইট গুগল এর ​অ্যালগরিদমিক পেনাল্টি পেতে পারে।  
  • আপনার ওয়েবসাইট ​আর্কিটেকচার ইউজার ফ্রেন্ডলি না হলে গুগল এর ​অ্যালগরিদমিক পেনাল্টি পেতে পারে।  
  • অতিরিক্ত স্প্যাম (লো-কোয়ালিটি) ব্যাকলিঙ্ক এর কারনে আপনার ওয়েবসাইট কে পেনাল্টি দিতে পারে।  

গুগল অ্যালগরিদম আপডেট এ র‌্যাংকিং হারালে কি করবেন?


গুগল অ্যালগরিদম আপডেট এর ফলে যদি আপনার সাইট র‌্যাংকিং হারায় তাহলে আপনি নিচে বর্ণিত কাজগুলি করতে পারেন।

  • ​আপনার প্রথম কাজই হচ্ছে, গুগলের যে অ্যালগরিদম আপডেট আসছে ঐ আপডেটে কি বলা হয়েছে। অর্থাৎ গুগল ঐ আপডেটে কোন ধরনের ওয়েবসাইটকে বা নিসকে টার্গেট করেছে বা কোন কি-ওয়ার্ডগুলিকে টার্গেট করেছে বা কোন ধরনের লিংক প্রোফাইলকে  টার্গেট করেছে​, এগুলি সম্পর্কে ভালো ভাবে জানুন। এই আপডেট সম্পর্কিত তথ্যের জন্য আপনি এই ব্লগগুলি দেখতে পারেন: সার্চ ইঞ্জিন জার্নল , সার্চ ইঞ্জিন ওয়াচ​, এবং সার্চ ইঞ্জিন রাউন্ড টেবিল​।
  • যেহেতু এখন আপনি আপডেটের ফলে কি পরিবর্তন এসেছে তা জানেন, এখন তাহলে আপনি আপনার সাইটিকে ভালো ভাবে পর্যবেক্ষন করুন এবং আপনার সাইটকে তুলনা করুন আপডেটের সঙ্গে। তাহলেই আপনার সাইটের দোষ-ত্রূটি আপনি বুঝতে পারবেন এবং সে অনুযায়ী আপনার সাইটকে সাজাতে পারবেন।
  • তবে আপনি লক্ষ্য করুন যে এই আপডেট কি আপনার পুরো সাইটের উপড় প্রভাব ফেলেছে, নাকি শুধু কিছু পেজের উপড় এর প্রভাব পরেছে।  
  • আপনাকে গুগল এর ওয়েবমাস্টার গাইড লাইন ফলো করে ওয়েবসাইট তৈরি করতে হবে।

​উপরের আলোচনার মাধ্যমে আমি চেষ্টা করেছি গুগলের অ্যালগরিদম এবং অ্যালগরিদম আপডেট সম্পর্কে বিস্তারিত ধারনা দিতে। আমরা আগেই জেনেছি গুগল অ্যালগরিদম আপডেট অনেক সময় সপ্তাহব্যাপী কখনো ৩-৪ ​সপ্তাহও সময় লেগে যায়। তাই গুগলের রানিং ​অ্যালগরিদম আপডেট এর ব্যাপারে এখনো পরিস্কার করে কিছু বলার সময় আসেনি, এ ব্যাপারে কোনো তথ্য পাওয়া মাত্রই আমি পোষ্ট আপডেট করে দিবো।

​আশাকরি আর্টিকেলটি আপনাদের ভালো লেগেছে। কন্টেন্টটি যদি ইনফরমেটিভ মনেহয় তবে ফেসবুক এবং অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করতে ভুলবেন না। 

​আপনাদের যে কোন প্রশ্ন আপনারা কমেন্টের মাধ্যমে করতে পারেন, ধন্যবাদ

Check Also

Important Google Ranking Factor

গুগল র‌্যাংকিং ফ্যাক্টর – পর্ব ০২

​হ্যালো!!! “গুগলের  গুরুত্বপূর্ন র‌্যাংকিং ফ্যাক্টর” নিয়ে ২য় আর্টিকেলে সবাইকে স্বাগতম। যারা এখনো “গুগলের  গুরুত্বপূর্ন র‌্যাংকিং …

2 comments

  1. thanks,nice post

  2. Amzad hossen Dalim

    cool post thanks for sharing sir.

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

shares