Home / এসইও / ২০১৮ সালের অফ-পেজ এসইও (Off-Page SEO) কৌশল কি হওয়া উচিত
Off Page Strategies

২০১৮ সালের অফ-পেজ এসইও (Off-Page SEO) কৌশল কি হওয়া উচিত

শুরুটা একটু গল্প মাধ্যমে করি। মনে করুন আপনার নাম “A” । আপনি এসইও শিখতে চান ও সার্ভিস দিতে চান। আপনি BITM এর SEIP প্রোজেক্ট এর আওতায় SEO কোর্সে ভর্তি হলেন। সেখানে মোঃ ফারুক খান স্যার আপনাকে এসইও শেখালেন। এখন আপনি জানেন এসইও কি, কিভাবে এই সম্পর্কিত কাজ করতে হয় এবং আপনি চাচ্ছেন এই বিষয়ে সার্ভিস দিতে ও এসইও এক্সপার্ট হিসাবে প্রতিষ্ঠিত হতে। প্রশ্ন হল “আপনার এই চিন্তার সফল বাস্তবায়নের জন্য আপনার কি করা উচিত?”

চলুন গল্পটা একটু ভেঙ্গে-ভেঙ্গে উত্তরটা যাচাই করি।

ধরুন গল্পের “A” নামে যে আছে সে কোন মানুষ নয় বরং একটি ওয়েবসাইট। এই “A” কে ফারুক খান স্যার খুব ভালোভাবে এসইও শিখিয়েছেন- তার মানে ওয়েবসাইটটিকে SE Friendly করে তৈরি করেছেন। এই SEO Friendly করে তৈরি করার নাম হল On-Page SEO (On-site SEO)। আবার “A” চাচ্ছে সে সবার মাঝে তার অভিজ্ঞতাকে তুলে ধরার মাধ্যমে পেশাগতভাবে আয় শুরু করবে। এর জন্য “A” নামক ওয়েবসাইটটিকে সবার মাঝে ছড়িয়ে দিতে হবে যাতে সবাই জানতে পারে যে ওয়েবসাইটটির মাধ্যমে SEO সার্ভিস প্রদান করা হয় এবং যে কেউ এখানে তার প্রয়োজনীয় এসইও সার্ভিস চাইতে পারে। সুতরাং “A” ওয়েবসাইটটিকে সবার মাঝে ছড়িয়ে দেবার জন্য যা যা করা প্রয়োজন (website এর বাইরে) তা করার জন্য SEO এর যে ধাপটির দরকার হবে তাকে আমরা বলে থাকি Off-Site SEO।

অতএব বলা যায় একটি ওয়েবসাইটকে বাইরে থেকে ঐ ওয়েবসাইট সম্পর্কে সার্চ ইঞ্জিন কে অবগত করানোই Off-Site SEO। এখন আসুন টেকনিক্যাল ভাষায় Off-site SEO কি তা জানি।

​অফপেইজ এসইও কি?

​অফসাইট এসইও এর অন্য নাম অফপেইজ এসইও (Off-Page SEO)। সার্চ ইঞ্জিন রেজাল্ট পেজের (SERPs) ভালো রেঙ্কিং পাবার জন্য ওয়েবসাইটের বাইরে যেই কাজগুলো করা হয় তাই অফসাইট এসইও নামে পরিচিত । ইন্টারনেট জগতের জনপ্রিয় কিছু প্লাটফর্মে লিংক সাবমিট করা, ওয়েবসাইটের প্রচার করার মাধ্যমে অফপেইজ এসইও সম্পন্ন করা হয়ে থাকে ।

​অফ-পেজ এসইও কেন গুরুত্বপূর্ণ?

সার্চ ইঞ্জিন অ্যালগোরিদম এবং রেঙ্কিং উপাদানগুলো নিয়মিত পরিবর্তিত হয়। তবে অফপেজের কাজগুলো খুব বেশি পরিবর্তন হবার সুযোগ নেই। একটি কনটেন্টের রেঙ্কিং দেয়ার ক্ষেত্রে গুগুল অ্যালগোরিদম কিভাবে ভূমিকা রাখে সেটা সম্পূর্ণ না জানা থাকলে এটা মোটামুটি ভাবে বলা যায় যে অফসাইটের সাথে সম্পর্কিত উপাদানগুলো রেঙ্কিং এর ক্ষেত্রে অনেকখানি ভূমিকা রাখে।

SEO Pie Chart

লিংক এবং অফপেইজ এসইও

ব্যাকলিংককে অফসাইট এসইও এর প্রাণ বলা হয়। একটি কনটেন্টের মান যাচাই করার জন্য গুগুল ব্যাকলিংক চেক করে। সমমানের দুইটি কনটেন্টের মধ্যে যার ব্যাকলিংক বেশি, রেঙ্কিং এর জন্য গুগল তাকে অগ্রাধিকার দেয়।

সাধরনত তিন ধরনের লিংক হয়ে যাকে। যেমন:

  1. Natural links:  যখন অন্য কোন ওয়েবসাইট ওনার বা ব্লগার আপনার কন্টেন্টের লিংকটি ব্যাবহার করে (তাদের সাইটে কিংবা সোস্যাল মিডিয়ায় বা গেস্ট পোস্ট এ) এই ধরনের লিংককে বলা হয় Natural Link। তারা এই কাজটি করে, কারণ তারা মনে করে, আপনার কন্টেন্টটি তাদের পাঠকের উপকারে আসবে। 
  2. Self-created links: যখন আপনি অন্য কারও ওয়েবসাইট, ফোরামে গিয়ে লিংক তৈরি করার চেষ্টা করেন (যেমন কমেন্ট ব্যাকলিংক, ইনফোগ্রাফিক, গেস্ট পোষ্ট ইত্যাদি), ঐ ধরনের ব্যাকলিংক হচ্ছে Self-created Links. 

২০১৮ সালের জন্য অফপেজ এসইও এর গুরুত্বপূর্ণ উপায়গুলো তুলে ধরা হলো

প্রাইভেট ব্লগ নেটওয়ার্ক (PBN) ব্যাকলিংক

একটা ওয়েব সাইট খুব দ্রুত রেঙ্কিং করানোর জন্য পি. বি. এন ব্যাকলিংক সবথেকে জনপ্রিয় প্রক্রিয়া। তবে এটি অনেক ব্যায়বহুলও বটে! পি. বি . এন অনেকটা ব্লাকহ্যাট এস ই ও এর মত! অনেকেই গ্রে হ্যাট এস ই ও ও বলে থাকেন! হোয়াইট হ্যাট আর ব্লাক হ্যাট এস ই ও এর মাঝামাঝি! অনেকটা। আপনার ব্যাকলিংক করার দক্ষতার উপর নির্ভর করবে যে আপনার লিংক বিল্ডিং হোয়াইট হ্যাট হবে না কি ব্লাক হ্যাট হবে। সঠিকভাবে লিংক বিল্ডিং করতে পারলে ৩-৪ মাসের মধ্যে গুগল রেঙ্কিং পাওয়া সম্ভব।

Private Blog Network

PBN বলতে বুঝায় নিজের কয়েকটা ব্লগিং নেটওয়ার্ক! PBN তৈরী করার জন্য আমাদের কয়েকটা ধাপ অনুসরণ করতে হবে।

১। এক্সপায়ার্ড ডোমেইন ক্রয়:

প্রথমত, পি বি এন তৈরী করার জন্য আমাদেরকে এক্সপায়ার্ড ডোমেইন খুজে বের করতে হবে। তার আগে জানা দরকার এক্সপায়ার্ড ডোমেইন কি? অনেকেই একটা ডোমেইন কিনে ওয়েবসাইট কয়েক বছর রাখার পর আর রিনিউ করে না। এই ডোমেইন গুলো অকশনে বিক্রি হয়। এখন কথা হচ্ছে এক্সপায়ার্ড ডোমেইন কেন লাগবে? এক্সপায়ার্ড ডোমেইন গুলো নিয়ে যেহেতু কয়েক বছর ওয়েব সাইট রান করা হয় এর মধ্যে ওই ডোমেইনগুলোর রেঙ্ক হয়ে যায়! র‌্যাংক বলতে আমি ডোমেইন অথোরিটি (ডি. এ) এবং পেজ অথোরিটি (পি. এ) বুঝি। এক্সপায়ার্ড ডোমেইন নেম এর ক্ষেত্রে পি. এ নাও থাকতে পারে! কারন অনেক দিন ওই ডোমেইনটার কোন ওয়েব সাইট নাও থাকতে পারে। এক্সপায়ার্ড ডোমেইন খোজার জন্য অনেক পেইড টুলস আছে। তার মধ্যে ডমকম্প.কম অনেক জনপ্রিয়।

ফ্রি টুলস গুলোর ভেতর গোড্যাড্ডি অকশনটা অনেক ভাল। এখানে যাওয়ার পর একটা সার্স বক্স পাবেন। এবং আপনার নিশ রিলেটেড কিওয়ার্ড দিয়ে সার্স দিলে নিচে ডোমেইন গুলো চলে আসবে। ডানদিকে এ্যাডভান্স সার্স অপশন পাবেন যেইটা মুলত আমাদের কাজে লাগবে ফিল্টারিং এর মাধ্যমে আমাদের প্রয়োজনীয় ডোমেইন নেম গুলো খুজে বের করতে।

how to buy expire domain

​এ্যাডভান্স সার্স অপশন থেকে প্রথমেই আপনি আপনার কিওয়ার্ড টা ডোমেইন নেমের মধ্যে কিভাবে থাকবে তা সিলেক্ট করে দিতে পারবেন। আপনি কোন এক্সটেনশান এর ডোমেইন নিতে চান তা সিলেক্ট করতে পারবেন। এই ক্ষেত্রে আমরা .কম, .নেট এবং .ওরগ ডোমেইন নিয়ে কাজ করব। কারন এগুলো টপ লেভেল ডোমেইন যা গুগলের কাছে রেঙ্কিং এর ক্ষেত্রে অগ্রাধিকার পায়। আপনি কত ডলার থেকে কত ডলার এর ডোমেইন কিনতে চাচ্ছেন তা প্রাইস সেকশনে লিখে দিতে পারেন।

​নিচের বারটি ডানদিকে নিলে আমরা আরও কিছু অপশন পাব।

how to buy expire domain 2018

ডোমেইন এজ থেকে আপনি কত বছর থেকে কত বছর বয়সের ডোমেইন চাচ্ছেন তা খুব সহজে লিখে দিতে পারবেন। এরপর ট্রাফিক অপশন, যেখানে প্রতি মাসে কেমন ভিজিটর চাচ্ছেন তা লিখে দিতে পারবেন।

এইভাবে ফিল্টারিং করে খুব সহজে আপনার কাঙ্খিত ডোমেইন নেম পেয়ে যাবেন।

গুরুত্ত্বপূর্ণ টিপস: ডোমেইন কেনার সময় অবশ্যই ডোমেইন অথোরিটি (ডি.এ) বেশি নেওয়ার চেষ্টা করতে হবে এবং তা ৩০+ হলে ভাল হয়। ডি.এ ১৫ এর নিচে হলে তেমন কোন লাভ হবে না।

ডোমেইন রেজিস্ট্রেশনের সময় অবশ্যই একটা বিষয় মাথায় রাখতে হবে যেন সবগুলো ডোমেইন নেম একজনের নামে না হয়। এবং আপনার মানি সাইটের ডোমেইন-হোস্টিং যে তথ্য দিয়ে রেজিস্ট্রেশন করা তার সাথে না মিলে। আপনি যদি ৫ টা ডোমেইন কিনেন তাহলে তা অন্য ৫ জনের মেইল এবং তথ্য দিয়ে কিনতে হবে। সবগুলো ডোমেইন যদি একই তথ্য দিয়ে কেনা হয় তাহলে আপনি গুগলের কাছে ধরা পড়ে যাবেন। গুগল বুঝে ফেলবে যে সবগুলো সাইটের মালিক একজন, এবং র‌্যাংক নাও দিতে পারে এমনকি পেনাল্টিও দিতে পারে।

২। ওয়েব সাইট তৈরী এবং কন্টেন্ট পাবলিশ:

ডোমেইন ক্রয় হয়ে গেলে আমাদের হোস্টিং কিনতে হবে এবং ওয়েবসাইট তেরী করতে হবে। হোস্টিং কেনার সময় প্রতিটি সাইটের যেন আলাদা আই পি এ্যাড্রেস হয়, অবশ্যই নিশ্চিত করতে হবে। ওয়েব সাইট তৈরী শেষ হলে অন-পেজ এস ই ও করতে হবে এবং কিছু কন্টেন্ট পাবলিশ করতে হবে। আপনি চাইলে অফপেজ এস ই ও করতে পারেন।

৩। লিংক বিল্ডিং:

ওয়েব সাইটগুলো পাবলিশ হওয়ার পর ন্যাচারালি লিংক বিল্ডিং করতে হবে। একটা ওয়েব সাইট থেকে আপনার মানি সাইটের জন্য ১-২ টা ব্যাকলিংক নিতে পারেন এবং একটা পোস্ট থেকে ২ টার বেশি লিংক নেওয়া ঠিক হবে না। মনে করেন, আপনার যদি ১০ টা পি বি এন ওয়েব সাইট আছে এবং আপনি ১ দিনে ২০ টা ব্যাকলিংক আপনার মানি সাইটে দিয়ে দিলেন। এইটা ন্যাচারাল ব্যাকলিংক হল না। বরং আপনি কয়েকদিন পর পর একটা দুইটা করে ব্যাকলিংক দিতে পারেন। আপনি যদি কোনরকম ঝুকি নিতে না চান, সেক্ষেত্রে টায়ার ২ ব্যাকলিংক করতে পারেন। নিচের চিত্রটা খেয়াল করলে বুঝতে পারবেন।

PBN Link Flow

প্রথমে আপনার মানি সাইটের জন্য গেস্ট পোস্ট এ একটা ব্যাকলিংক করা হয়েছে। এরপর ঐ ব্যাকলিংকটার যে পোস্ট তার পারমালিংক/লিংকটা পি বি এন সাইটের একটা পোস্টে পাবলিশ করা হয়েছে।

আর একটা গুরুত্ত্বপূর্ণ বিষয় হল আপনার পি বি এন সাইটগুলোতে আপনার মানি সাইটের পাশাপাশি ভাল ভাল হাই-অথোরিটি ওয়েবসাইটগুলোর কিছু লিংক এ্যাড করতে ভুলবেন না।

আপনার মানি সাইট রেঙ্কিং করানোর জন্য হাজার হাজার লিংক বিল্ডিং করার প্রয়োজন নেই। সবসময় কোয়ালিটি লিংক বিল্ডিং এর কথা মাথায় রাখবেন, কোয়ানটিটি নয়!

শুধুমাত্র PBN Link Building করে এবং Social Signal এর মাধ্যমে একটা মানি সাইট রেঙ্কিং করানো সম্ভব।

আশা করি পুরো প্রক্রিয়াটি বুঝাতে পেরেছি। এবার মুল কথায় আসি। পি বি এন তৈরীতে আপনার অনেক বড় একটা ইনভেস্ট লাগবে। আপনি যদি চান, কয়েক বছর পর আপনি যে পরিমান ইনভেস্ট করবেন তার থেকে কয়েকগুন বেশি দামে ওয়েব সাইটগুলো বিক্রি করে দিতে পারবেন। আবার ইচ্ছে করলে আপনি আপনার পি বি এন থেকে ব্যাকলিংক অন্যদের কাছে বিক্রিও করতে পারবেন।

ওয়েব ২.০

​ওয়েব ২.০ ওয়েবসাইট বলতে সেই ওয়েবসাইটগুলো বুঝায় যেই সাইটগুলোর কন্টেন্ট এবং ব্যাকলিংকগুলোর উপর আপনার সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রন থাকবে এবং সম্পূর্ণ ফ্রি। যেমন ব্লগার, ওয়ার্ডপ্রেস.কম, টামলার, উইক্স.কম ইত্যাদি সাইট। এখানে লিংক বিল্ডিং প্রসেস খুবই সহজ। তবে ব্যাসিক লিংক বিল্ডিং স্ট্রাটেজি মাথায় রাখতে হবে।

Web 2.0

প্রথমে আপনার নিশ রিলেটেড ভিন্ন ভিন্ন নামে এবং ইমেইল দিয়ে রেজিষ্ট্রেশান করতে হবে যেন গুগল না বুঝতে পারে যে সবগুলো সাইটের মালিক আপনি। এরপর একটা ওয়েবসাইট যেভাবে পাবলিশ করে সেইভাবে কন্টেন্ট দিয়ে, অনপেজ, অফপেজ এস ই ও করতে হবে। আপনার ওয়েব ২.০ সাইটগুলো যখন মোটামুটি র‌্যাংক করবে তখন পি বি এন সাইটে যে ভাবে ন্যাচারাল লিংক বিল্ডিং এর কথা বলা হয়েছে তার মত করেই ন্যাচারাল ব্যাকলিংক করতে হবে। ওয়েব ২.০ ব্যাকলিংক এর সবথেকে বড় সুবিধা হল এই সাইটগুলোর ডোমেইন অথোরিটি (বাই ডিফল্ট) অনেক হাই থাকে। বর্তমানে টামলার থেকে ভালভাবে কিছু ব্যাকলিংক নিতে পারলে দ্রুত ভাল রেজাল্ট পাওয়া যায়। 

১০টি ভালো ওয়েব ২.০ সাইটের লিস্ট (ডোমেন অথরিটি সহ)

ডকুমেন্ট শেয়ারিং ব্যাকলিংক

​ডকুমেন্ট শেয়ারিং খুব সহজ একটা ব্যাকলিংক বিল্ডিং প্রক্রিয়া। অনলাইনে অনেক ওয়েবসাইট আছে যারা আপনাকে আপনার নিজের তৈরী ডকুমেন্ট যেমন, স্লাইড, পি ডি এফ, ভিডিও শেয়ার করতে দিবে।

document sharing for backlink

প্রথমে আপনাকে যা করতে হবে, আপনার নিশ রিলেটেড কিছু ডকুমেন্ট তৈরী করতে হবে। সেইটা হতে পারে স্লাইড বা পিডিএফ। এবার ডকুমেন্ট শেয়ারিং সাইটে তা আপলোড দিয়ে, ডেসক্রিপশনে সুন্দর করে ওই বিষয়টার বর্ণনা দিতে হবে এবং তার মধ্যে আপনার সাইটের লিংটা দিয়ে দিতে হবে। ডকুমেন্ট শেয়ার করার জন্য স্লাইডশেয়ার.নেট  অনেক ভাল একটা ওয়েব সাইট।

Slide Share

​এখানে সাইনআপ করতে হলে অবশ্যই আপনার লিংকডিন এক্যাউন্ট থাকতে হবে। সাইন ইন করে আপনার স্লাইড বা পিডিএফ এখানে শেয়ার করতে পারেন।

​লিংক বিল্ডিঙের ক্ষেত্রে একটা বিষয় অবশ্যই মাথায় রাখবেন, কখনও অন্য কারো লেখা কন্টেন্ট কপি করে তা অন্য সাইটে পাবলিশ করবেন না। সেইটা হোক আংশিং বা সম্পূর্ণ।

গেস্ট পোস্ট (Guest Posting) ব্যাকলিংক

Guest Post কি?

অনলাইনে এমন অনেক সাইট আছে যারা ভালো মানের লেখকদের লেখা সাইটে পোষ্ট করে থাকে এবং সাইটে এমন একটি অপশন রাখে যার নাম "Write For Us", অর্থাৎ তার জন্য লেখা দিবেন।

তবে এখানে এসকল সাইটে আপনি চাইলেই আপনার লেখা দিতে পারবেন না। কারন এই  "Write For Us" পেজের কিছু নিয়ম থাকে। আপনাকে সেগুলি মেনে কাজ করতে হবে।

guest posting

কিভাবে Guest Post লিখবেন

একজন সফল গেস্ট ব্লগার হতে হলে আপনাকে অবশ্যই ভালো মানের কনটেন্ট বা ব্লগ লিখতে হবে। আপনার লেখাটি নিম্নলিখিত বিষয় গুলো মাথায় রেখে লিখতে হবে ।

  • আপনি যে বিষয়ে লিখবেন সেটাতে দক্ষ হতে হবে ।
  • আপনার গেস্ট পোস্টটি লাইক, শেয়ার এবং মন্তব্য পাওয়ার যোগ্য হতে হবে ।
  • আপনার পোস্ট এ আপনার নাম এবং আপনার সাইটের লিংক রাখতে হবে ।

​কিভাবে Guest Blogger হওয়া যায়

​যে ব্লগটি লিখবেন সেটা আপনার নিস রিলিভেন্ট হতে হবে। আপনার ব্লগটি যেন উচ্চ মানসম্পন্য হয় সেদিকে লক্ষ রাখতে হবে । ব্লগারদের ভাল কন্টেন্ট প্রয়োজন, গেস্ট পোস্টিং এর মাধ্যমে অন্যান্য ব্লগারদের সাথে আপনার বন্ধুত্ব গড়ে উঠে। এতে করে সোশ্যাল মিডিয়া গুলো যেমন ফেইসবুক, টুইটার, ইনস্টাগ্রাম ইত্যাদিতে আপনার অবস্থান শক্ত হবে তেমনি আপনার নিজস্ব পরিচিতির পরিধি বৃদ্ধি পাবে। যা আপনার ব্লগের ভিজিটরের সংখ্যা বাড়িয়ে দেবে।

কেন Guest Posting করবেন?

গেস্ট পোস্ট এর মাধ্যমে যে ব্যাকলিংক গুলো তৈরী করবেন তা সময়ের সাথে সাথে সার্চ ইঞ্জিন রেজাল্ট পেজ এ আপনার ব্লগের মান বৃদ্ধি করবে এবং আপনার ব্লগটি ইয়াহু, বিং এবং অন্যান্য মাধ্যমে সহজে খুজে পাওয়া যাবে। গেস্ট পোস্টিং এর একটি বিশেষ অংশ হলো বিভিন্ন কমিউনিটিতে গিয়ে আপনার বিষয়ভিত্তিক দক্ষতা প্রকাশ করা এতে করে আপনি নতুন ব্যক্তিদের সাথে পরিচিত হতে পারবেন যা আপনার সাইট এ ভিজিটর বাড়াতে মুখ্য ভূমিকা পালন করবে।

ব্যাক লিংক প্রকৃতপক্ষে সাইটের রেঙ্কিং উন্নয়ের জন্য গুরুত্বপূর্ণ হলেও যদি একে সঠিকভাবে প্রয়োগ না করা হয় তবে তাতে হিতে বিপরীত হতে পারে। তাই যেই বিষয়গুলোর প্রতি খেয়াল রাখা লাগবে তা হলঃ

  • অপ্রাসংগিক কোনো পেজ থেকে লিংক নেয়া যাবে না।
  • লিংক নেয়ার সময় অবশ্যই রিলিভেন্ট Anchor Text ব্যবহার করতে হবে।
  • এইক সাইট থেকে আবার একাধিক লিংক নেয়া যাবে না।

প্রশ্ন-উত্তর সাইটের লিংক - Quora

Quora কি?

বর্তমান বিশ্বের সবচেয়ে বড় Question/Answer Website এখানে World এর সব ধরনের Topic এর উপর আলচনা করা হয় এবং Question/Answer করা হয়।

Quora

এছারা Quora তে অনেক Advance Features রয়েছে। এখানে আপনারা পছন্দ মত Audience কে Target করে Question করতে পারবেন এবং তাদের সাথে Communication করতে পারবেন Post Commenting এর মধ্যে। LinkedIn এর মত করে এখানে Content Post/Publish করে যায় এবং অন্য সব Social Network এর মত সবার সাথে Messaging এর মাধ্যমে কথা বলা যায়। এখানে Specific Question Search করা যায় নিজস্ব Topic Based। Answer ভাল লাগলে তার উপর Vote করা যায়। এখানে বিভিন্ন ভাবে মার্কেটিং করা যায় Posting, Commenting and Answer Replying করে এবং এখানে মার্কেটিংও করা যায়।

Quora কেন Online Marketer দের জন্য উপযোগী?

প্রথমত Quora তে World এর সব দেশ থেকে Audience পাওয়া যায়, এবং শুধুমাত্র USA থেকে এখানে ৭,৭৫,০০০ User Registered আছে, যারা সঠিক অর্থে Knowledge Seeker.

যে কারনে Quora Marketer দের জন্য উপযোগী-

  • Monthly ৭,০০,০০০+ মানুষ এর কাছে নিজেকে পরিচিত করা যায়।
  • নিজের Skill base topic এর উপর Experience এবং Expertise বাড়ানো যায়।
  • অনেক ধরনের মানুষ থাকার ফলে সবার কাছ থেকে কিছু না কিছু সেখা যায়।
  • বিভিন্ন ধরনের Product সম্পর্কে Question/Answer করা যায় এবং ভাল উত্তর দিতে পারলে অনেক সহজে Product Sell করা যায়।
  • আপনার Product সম্পর্কে সব ধরনের Possible Question এবং Answer পাওয়া যায়।

কিভাবে সঠিক ভাবে Quora Profile তৈরি করতে হবে?

এখানে অনেক বড় Opportunity আছে নিজেকে এবং নিজের Business কে Branding করার জন্য। এখানে আপনার Brand Name এবং Skill গুলো Focus করা টা ভাল। কারন যদি কোন Answer করা হয় তাহলে Profile এর About Section এর প্রথম 50 Character Show করে, যা আপনার পরিচিতির জন্য অনেক ভাল।

Quora Profile তৈরি করার পদ্ধতি সমূহ

  • আপনার নিজের অথবা আপনার Brand এর সম্পর্কে সঠিক তথ্য আপনার Profile এর About Me Section এ যোগ করুন।
  • আপনার Skills গুলো যোগ করুন এবং আপনার Strong Expertise গুলোও।
  • আপনার Interest গুলো যোগ করুন, যাদেরকে আনুসরন করে আপনি Question দেখতে পাবেন।
  • আপনার Address, Postal, City etc. এবং অন্যান্য সব Place এর তথ্য যোগ করুন।
  • আপনার শিক্ষাগত যোগ্যতা গুলো যোগ করুন।
  • আপনার Experience গুলো যোগ করুন। যেখানে ঐ সকল Company’s নাম থাকবে যেখানে আপনি কাজ করেছেন এবং তাদের Details।
  • Possible সব ধরনের Social Media গুলো আপনার Profile এ যোগ করুন। এতে আপনার Quora Identity সব জায়গায় সমানভাবে ছড়িয়ে পরবে। 

যদি সবগুল Steps সঠিকভাবে সম্পূর্ণ করা যায় তাহলে ভাল Impression পাওয়া যাবে I think। ওইসব ছাড়া আরও কিছু Strategy আছে নিজেকে ফুটিয়া তোলার জন্য। যেমনঃ

আপনার Topic এর উপর ভিত্তি করে Notification Trace করতে হবে। তার মানে বিভিন্ন ধরনের Question থেকে বেছে আপনার Topic Related Question এর সাথে Engagement বাড়াতে হবে। ভাল ভাল Question/Answer সম্পর্কে Analysis করতে হবে এবং ঐভাবে নিজের Question/Answer গুলকে গুছিয়ে Submit করতে হবে। এই ধরনের Question/Answer পেতে Quora তে Regular Active থাকতে হবে এবং বিভিন্ন User দের Question/Answer এ Response করতে হবে।

বিখ্যাত এবং Authority সব Question এর Answer করার try করতে হবে। এতে অনেক ভাল User Engagement আসে। Quora তে আপনার Personal অথবা আপনার Business related page তৈরি করতে হবে, যেন User Engagement ভাল পাওয়া যায়। আপনার Answer করা Question কে বার বার Check করতে হবে এবং প্রয়োজনে এক এর অধিক Answer করতে হবে, এবং Answer করার আগে অবশ্যই ২-৪ বার ভাল Research করতে হবে। Quora তে Blog তৈরি করতে হবে এবং ঐখানে আপনার Content দিতে হবে এবং প্রয়োজন এ Update করতে হবে। এতে করে অনেক Unique audience পাওয়া যায়। আপনার উত্তর কে একটা ভাল Format এ সাজিয়ে এবং গুছিয়ে Then answer করতে হবে। যেন Question Maker সহজে বুঝতে পারে এবং পড়তে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করে।

ফোরাম পোষ্টিং (Forum Posting)

ফোরাম পোষ্টিং কি?

ফোরাম পোস্টিং হচ্ছে অফপেজ SEO এর একটি কৌশল। আর অফপেজের একটি গুরুত্বপূর্ণ কৌশল হচ্ছে ব্যাক লিঙ্ক তৈরি করা। যা আপনার ওয়েবসাইটের রেঙ্কিং বাড়াতে সাহায্য করে। তবে ফোরামের প্রধান উদ্দেশ্য হচ্ছে মানসম্পন্ন তথ্য উপস্থাপন করা, মানসম্পন্ন তথ্য আপনাকে মানসম্পন্ন ব্যাক লিঙ্ক পেতে সাহায্য করবে।

Forum Posting

ফোরাম পোস্টিং করার কিছু নিয়ম

  • আপনার দেয়া তথ্যটি আলোচিত বিষয়ের সাথে প্রাসঙ্গিক এবং তথ্যবহুল হতে হবে।
  • আপনার দেয়া লিঙ্কে প্রাসঙ্গিক বিষয় না থাকালে আপনাকে এই সব ফোরাম হতে ব্যান করা হতে পারে, কেননা কেউ যাবে স্প্যাম করতে না পারে সেটা এদের প্রাইভেসি পলিসিতে খুব ভালো ভাবে মানা হয়।
  • সরাসরি লিঙ্ক পোস্ট না করে সাধারন আলোচনার মাঝে লিঙ্ক পোস্ট করা উচিত।

SEO এর জন্য ফোরাম পোস্টিং যেভাবে আপনাকে সাহায্য করতে পারে

  • কিছু ফোরামে কমেন্টের শেষে স্বাক্ষরের মাধ্যমে লিঙ্ক সংযুক্ত করা যায়। তবে এভাবে লিঙ্ক পোস্ট করার জন্য আপনাকে একটা লেভেলে পৌঁছতে হবে। আপনি সেটা অর্জন করলে স্বাক্ষর করার অপশন যুক্ত হবে। আপনার প্রতিটি স্বাক্ষরের সাথে অটোমেটিক লিঙ্ক সংযুক্ত হবে। আপনি যত বেশি পোস্ট করবেন আপনার সাইটের ব্যাক লিঙ্ক তত বাড়বে।
  • ফোরামের পেজের মধ্যে কোন পণ্যের সরাসরি বিপণন করার সুযোগ ও থাকে। এক্ষেত্রে পণ্যের ব্যাবহারকারীরা এখানে পণ্যের ব্যাপারে আলোচন করা সুযোগ পায় ।
  • ফোরামের মাধ্যমে প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে আপনার সাইটের ট্যারিফ বৃদ্ধি করা সম্ভব। যিনি যত বেশি পোস্ট করবেন তাঁর লিঙ্ক পোস্ট করার সুযোগ তত বেশি থাকবে।

এভাবেই আপনি আপনার ওয়েবসাইটের ব্যাকলিঙ্ক করে রেঙ্ক বাড়িয়ে গুগুল সার্চ রেজাল্ট পেজের শুরুতে থাকতে পারবেন ।

ব্রোকেন লিংকস (Broken Links)

বলা হয়ে থাকে, ব্রোকেন লিংক হচ্ছে ব্যাকলিংক এর বাইবেল। ব্রোকেন লিংক এর সংজ্ঞা এভাবে দেয়া যায়, মনে করুন আপনার একটি হেলথ রিলেটেড সাইট আছে। সাইটটির নাম, abc.com। আপনি সাইটের জন্য কন্টেন্ট লিখলেন, এবং কন্টেন্ট এ এক্সটারনাল লিংক হিসেবে টপিকস অন্য কোন সাইটের ১বা ২ টি লিংক এড করলেন। কিন্তু কয়েকমাস পর ঐ সাইট টি ইনএকটিভ হয়ে গেল (অথবা সাইট উনার লিংকটি চেঞ্জ করে ফেললে)। তখন কোন ভিজিটর যখন আপনার সাইট থেকে ঐ সাইট এ যাওয়ার চেষ্টা করবে, লিংক টি 404 ERROR দেখাবে। আর এটাকেই বলে ব্রোকেন লিংক(ডেইথ লিংক)।

অর্থাৎ, কোন সাইটের এক্সটার্নাল লিংকগুলোর মধ্যে যে সকল লিংক 404 ERROR দেখায়, তাদের কে ব্রকেন লিঙ্ক বা ডেইথ লিংক হিসেবে অভিহিত করা হয়।

Broken Links

ব্রোকেং লিংক খুজে বের করার পদ্ধতিঃ

প্রথমে বলে নিই, ডেথ লিংক বা ব্রোকেং লিংক খুজে বের করার জন্য কিছু extensions বা টোলস রয়েছে। যেমন; Broken link checker, Check My Link ইত্যাদি। তবে প্রথমটি আমার নিকট অধিক পছন্দনীয়। কারণ এটি শুধু ব্রোকেন লিংক এর সংখ্যা বলেই দেয় না, শনাক্তও করে দেয়।

প্রথমে আপনি যে সাইটে ব্যাক লিংক করতে চাচ্ছেন, ঐ সাইটের টার্গেট পেইজ এ যাবেন। তারপর extension active(click) করলেই ব্রোকেন লিংক খুজে পাবেন। উক্ত লিংক এবং আপনার সাইট এর লিংক (যে লিংকটির জন্য ব্যাকলিংক চাইবেন) সাইট ওনারকে মেইল করবেন। অবশ্যই ডিটেইলস উল্লেখ করবেন।

সাইট ওনার কেন আপনার সাইটটি গ্রহন করবেন?

গ্রহন করবেন মূলত ২টি কারণে; এক, এতে তার কোন ক্ষতি হবে না; বরং উপকার হবে। কারণ একটি সাইট এ death link থাকা মানে গুগুলের নিকট সাইটের রেপুটেশন খারাপ হওয়া। কেউ চাইবেনা এটা হউক। আর দুই, কৃতজ্ঞতা প্রকাশ। আপনি শ্রম আর সময় দিয়ে তার সাইটের কাজ করেছেন, এর বিনিময়ে আপনার লিঙ্ক গ্রহন করার সম্ভাবনাই বেশি।

ব্রোকেন লিংক এর গুরুত্বঃ

এই লিংক এর গুরুত্ব অন্যান্য লিংক এর তুলনায় কম নয়, বরং একটু বেশি। আপনি কোন সাইটের ব্রোকেন লিংক বের করবেন? অবশ্যি আপনার নিশ রিলেটেড যে সকল সাইট সার্চ ইঞ্জিন ফার্ট পেইজ এ অবস্থান করবে। আর এ সকল সাইটে প্রতিনিয়ত সহস্রাধিক ভিজিটর হয়ে থাকে। একবার ভাবুন যদি ঐ সকল সাইটের ব্যাকলিংক পেয়ে যান, তো আপনার সাইট এর ভিজিটর কেমন হবে!

শুধু তাই নয়, আপনি চেষ্টা করলে Wikipedia কিংবা wikihow এর মতো সাইটেও এ লিংক বিল্ড আপ করতে পারেন। তবে এখানে লিংক পেতে হলে আপনাকে অত্যন্ত দক্ষ এবং বিচক্ষনতার পরিচয় দিতে হবে।

ইনফোগ্রাফিক সাবমিশন (Infographics)

​ইনফো অর্থাৎ তথ্য এবং গ্রাফিক অর্থ চিত্রকর্ম বা লেখচিত্র।  তার মানে ভিজিটরের নিকট আপনার সাইটের বিভিন্ন তথ্য চিত্রের মাধ্যমে তুলে ধরা-ই হচ্ছে ইনফোগ্রাফিক সাবমিশন। বর্তমানে এ ধরনের ব্যকলিংক বেশ জনপ্রিয়তা পাচ্ছে। কোন একটি ইনফোগ্রাফ দৃষ্টিনন্দিত হলে খুব সহজেই সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পরে বলে প্রচুর ভিজিটর পাওয়া যায়। 

কিছু জনপ্রিয় ইনফোগ্রাফিক্স সাবমিশন সাইট:

সোশ্যাল বুকমার্কিং (Social Bookmarking)

বর্তমানে সোশ্যাল বুকমার্কিং জনপ্রিয় একটি মাধ্যম আপনার সাইটের ব্যাকলিংক পাওয়ার জন্য। কিন্তু এ ক্ষেত্রেও আপনাকে সতর্কতার সঙ্গে কাজ করতে হবে। কেননা, এখন এমন অনেক সোশ্যাল বুকমার্কিং সাইট রয়েছে, যেগুলো স্প্যামি। তাই আপনাকে মানসম্মত সোশ্যাল বুকমার্কিং সাইটগুলোতেই কাজ করতে হবে, যেমন : Reddit, Digg, Delicious, StumbleUpon, Propeller ইত্যাদি।

Reddit

বর্তমান সময়ে বিশ্বের একটি জনপ্রিয় সোশ্যাল মিডিয়া হচ্ছে Guest Post। রেডিটের জনপ্রিয়তার কারন হলো এখান থেকে বুকমার্কিং করে সহজেই সাইটের জন্য প্রচুর ট্রাফিক আনা যায়।

রেডিট ২০০৫ সালের ২৩ জুন প্রতিষ্ঠা হয়।

রেডিট যেহেতু আমেরিকান সাইট সেহেতু এখানের প্রায় ৭০% ইউজারই আমেরিকান। যারা আমেরিকান ট্রাফিক নিয়ে কাজ করতে চান তাদের জন্য রেডিট নিঃসন্দেহে একটি ভালো প্লাটফর্ম।

রেডিটে মার্কেটিং করতে হলে রেডিটের কিছু বিষয় সম্পর্কে ভাল ধারনা থাকতে হবে। কারন প্রাথমিক অবস্থায় এই সাইটটিকে আপনার কাছে অগোছালো মনে হতে পারে।

importance of Reddit

আমি রেডিটের কিছু ফিচার সম্পর্কে কিছু ধারনা দিচ্ছি।

আপ ভোট -ডাউন ভোট

আমরা ফেসবুকের যেমন কেন কিছু পছন্দ হলে লাইক দেই তেমনি রেডিটে কোন পোষ্ট পছন্দ হলে তাকে লাইক দেওয়াকে আপ ভোট বলে আর অপছন্দ হলে ডিসলাইক দেওয়াকে বলে ডাউন ভোট।

কারমা

রেডিটের একটি গুরুত্বপূর্ণ ফিচার হচ্ছে কারমা। কারমা হল এক রকমের রেটিং। আপনি যদি আপনার সাবমিট করা লিংক বা কমেন্টের জন্য একটি আপ ভোট পান তাহলে আপনার কারমা বাড়বে এভাবে যত বেশী আপ ভোট পাবেন ততো বেশি কারমা বাড়বে। আপনার যতো বেশি কারমা বৃদ্ধি পাবে অন্যন্য রেডিটর আপনাকে ততো বেশি ফলো করবে এতে আপনার পোষ্ট র‍্যাঙ্ক করার সম্ভাবনা বৃদ্ধি পাবে। কিন্তু আপনি যদি বেশি ডাউন ভোট পান তাহলে এক পর্যায়ে আপনার একাউন্টটি ব্যান হয়ে যাবে। তাই বুজে শুনে রেডিটের নিয়মনীতি মেনে পোষ্ট করতে হবে।

সাব রেডিট

সাব রেডিট হলো রেডিটের ক্যাটাগরির নাম।

রেডিটে পোষ্ট করার পূর্বে প্রতিটি পোষ্টকে কোন না কোন সাব রেডিটের অন্তর্ভুক্ত করতে হয়। আপনার পোষ্টটি অপ্রাসংগিক কোন সাব রেডিটের আন্ডারে পোষ্ট করলে আপনার একাউন্টটি ব্যান হয়ে যাবে।

রেডিট অন্যান্য সোশ্যাল নেটওয়ার্কের মতো না। এখানে খুব সামান্য ভুলের জন্যও আপনার রেডিট একাউন্ট ব্যান হতে পারে। কারণ রেডিট ব্যবহারকারীরা কোন মার্কেটার পছন্দ করে না। তাই রেডিটে মার্কেটিং করতে হলে বুঝে শুনে বিভিন্ন কৌশলে মার্কেটিং করতে হয়।

আমি কিছু কৌশল শেয়ার করছি যা আপনার মার্কেটিং এ সাহায্য করবে।

রেডিটের নিয়মনীতি মেনে চলুন

রেডিটে একাউন্ট খোলা থেকে শুরু করে প্রতিবার পোষ্ট করার পূর্বে প্রত্যেক সাব রেডিটের নিয়ম কানুন ভালো করে পড়ে নিবেন। তারপর নিয়মঅনুযায়ী পোষ্ট করবেন।

প্রোফাইল আপডেট করুন

রেডিটের একাউন্ট খোলার পর সব ধরনের তথ্য দিয়ে প্রোফাইল আপডেট করুন। যাতে প্রোফাইলটিকে ন্যাচারাল মনে হয়। অন্যের পোষ্টে কোয়ালিটি সম্পন্ন কমেন্ট দিন যা অন্যরা পড়বে এবং পছন্দ করবে। তবে একাউন্ট খোলার সাথে সাথে লিঙ্ক পোষ্ট করবেন না। কিছুদিন পোষ্ট করুন।

ভালো টাইটেল লিখুন

আপনার পোষ্ট রেঙ্ক করার জন্য টাইটেল একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়।যেসকল পোষ্টের টাইটেল গোছানো এবং গুরুত্বপূর্ন তথ্য সম্বলিত হয় সেই পোষ্ট রেডিটে মূহুর্তের মধ্যেই করে।

পোষ্ট শেয়ার করুন

রেডিটের পোষ্টের আপভোট বৃদ্ধি করতে টুইটার এবং ফেসবুকে শেয়ার করুন।

কমেন্টের উত্তর দিন

যখন আপনার রেডিট পোষ্টে অন্যরা কমেন্ট করবে তাদের কমেন্টের উত্তর দিন। এর ফলে পোষ্টের কমেন্ট বেশি কাউন্ট হবে

ভিডিও শেয়ারিং (Video Sharing)

ভিডিও শেয়ার করার মাধ্যমে শুধু আপনি ব্যাকলিংক ই পাবেন না বরং আপনার ব্র্যান্ডের প্রচার ও খুব ভালো ভাবে করা সম্ভব। সম্ভবত এটা আপনি শুনেছেন যে YouTube কে ২য় সবথেকে ভালো সার্চ ইঞ্জিন বলা হয়। Moz এর Casey Henry এর মতে “একটি ভিডিওর লিংক ডোমেইনের সংখ্যার গড়, একটি টেক্সটের লিংক ডোমেইনের সংখ্যার গড়ের তিনগুন “

Video Sharing Sites

টেক্সট থেকে ভিডিওর গুরুত্ব কেন বেশি ?

  • বড় কোন আর্টিকেল পড়া অনেকেই পছন্দ করে না। এ ধরনের অডিয়েন্সদের আপনার ওয়েবসাইটে নিয়ে আসার জন্য ভিডিও খুব ভালো একটা মাধ্যম
  • ভিডিও যে কোন ডিভাইস ( মোবাইল, ল্যাপটপ, ট্যাব ) থেকে খুব সহজেই দেখা যায়।
  • সোসাল মিডিয়ায় ভিডিও শেয়ার করা সহজ ।
  • আপনার মূল্যবান তথ্য খুব সহজেই সুন্দর এবং সংক্ষিপ্তভাবে প্রকাশ করতে পারেন।
  • ভিডিও সঠিকভাবে অপ্টিমাইজ করে পোস্টিং এর মাধ্যমে সেটা গুগুল ভিডিও সার্চ পেজের প্রথমেই থাকার সম্ভাবনা থাকে ।

ভিডিওর মাধ্যমে কিভাবে ব্যাকলিংক পেতে পারেন ?


ভিডিও থেকে সাধারণত তিন ধরনের ব্যাকলিংক পেতে পারেন:

১. ভিডিও বানিয়ে তা ভিডিও শেয়ারিং সাইটে আপলোড করা।

  • আলোচিত কোনো বিষয়ের ভিডিও বানাতে পারেন
  • আপনার নিশের (niche) বিখ্যাত কোন ব্যাক্তির ইন্টারভিউ নিতে পারেন
  • কিভাবে (how to (Info content)) শিরোনামে ভিডিও বানাতে পারেন
  • ভিডিও ভাইরাল হবার সম্ভাবনা বেশি থাকে ।এক্ষেত্রে অনেক ব্যাকলিংক পেয়ে যাবার সম্ভাবনা থাকে।

২. অন্য কারো ভিডিওতে কমেন্টের মাধ্যমে ব্যাকলিংক পেতে পারেন।

৩. ভিডিও সাইটগুলোতে প্রোফাইল বানিয়ে ব্যাকলিংক পেতে পারেন।

কমেন্ট লিংক (Comment Links)

আপনি আপনার সাইটের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল রেখে অন্যান্য মানসম্মত ব্লগের আর্টিকেলে কমেন্টের মাধ্যমে আপনার সাইটের জন্য ব্যাকলিংক পেতে পারেন। যদিও বর্তমানে অধিকাংশ ব্লগই নোফলো ব্যাকলিংক (No-Follow Link) দিয়ে থাকে, তার পরও আপনি এখান থেকে কিছু ভিজিটর পেতে পারেন।

শেষ কথা

ব্যাক লিংক প্রকৃতপক্ষে ওয়েবসাইটের রেঙ্কিং উন্নয়ের জন্য গুরুত্বপূর্ণ হলেও যদি একে সঠিকভাবে প্রয়োগ না করা হয় তবে তাতে হিতে বিপরীত হতে পারে। তাই যেই বিষয়গুলোর প্রতি খেয়াল রাখা লাগবে তা হলঃ

  • Anchor text এর দিকে খেয়াল রাখতে হবে যাতে তা সঠিক ভাবে প্রয়োগ করা হয়।
  • রেফার করা ডোমেইনের দিকে খেয়াল রাখতে হবে যাতে কোন একটি সাইট থেকে বেশি লিংক তৈরি না হয়ে থাকে । একাধিক সাইট থেকে লিংক তৈরি হতে হবে।

তবে সব থেকে গুরুত্বপূর্ণ কথাটি হল, যদি আপনার সাইটের On-Page Optimization ঠিক না থাকে তবে Off-Page SEO গুরুত্বহীন হয়ে যাবে।

লেখাটি ভালো লেগে থাকলে অবশ্যই শেয়ার করবেন, ধন্যবাদ।

ধন্যবাদ এ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং ব্যাচ ২১ এর শিক্ষার্থীদের


BITM Affiliate Marketing Batch 21 Students

BITM Affiliate Marketing Batch 21 Students

আপনাদের সর্বত্বক সহযোগিতা ছাড়া এত সুন্দর একটি লেখা দেয়া সম্ভব হতো না। কারন আপনারাই লেখাটির মূল অংশের কাজ করেছেন। আবারও ধন্যবাদ।

Check Also

How to improve website loading speed

ওয়েবসাইটের স্পিড বৃদ্ধি এবং লোডিং সময় কমানোর ৬টি অসাধারন উপায়

3shares 3Facebook 0LinkedInওয়েবসাইটের বিভিন্ন সমস্যাগুলো মধ্যে ওয়েবসাইট স্লো কাজ করা এবং লোডিং স্পিড কম হওয়া …

51 comments

  1. Onek kisu shikhte parlam. Thanks sir

  2. Truly a Goldmine! Just What every blog site needs. Thank you very much, Sir, for sharing Such a detail Article on Off page SEO. Also thanks to Affiliate Marketing Batch 21.

    • ধন্যবাদ তপু আপনাকে। ভালো লাগলে আশা করি শেয়ার করবেন সবার সাথে।

  3. Porlam sir..khub bhalo.apnar video gulo o youtube a dekhlam.anek sikhlam. Ebar nijer website er upor try korbo.ami ekta travel blog start korechi. Ekta question ache..same video ki youtube and anno platform a share kora ba upload kora jay?

    • ধন্যবাদ, জ্বি Video শেয়ার করা যাবে, বিভিন্ন প্লাটফর্মে।

  4. Thank You bhaiya for posting.

  5. Shikhlam Onek Kichu Sir! Thank You.

  6. The best suggestion for our all. Thanks to my teacher and batch 21.

  7. এক কথায় দারুন হয়েছে 🙂

  8. সিওর…অনেক ভাল লিখছেন……আমার অনেক কাজে লাগবে…

  9. পোষ্টটি খুবই সুন্দর হয়েছে। আগামীতে আরও সুন্দর পোস্টের অপেক্ষায় রইলাই।

  10. PBN এর জন্য High PA DA সম্পন্ন এক্সপায়ার্ড ডোমেইন ক্রয় করতে বললেন। High PA DA সম্পন্ন এক্সপায়ার্ড ডোমেইন দিয়ে money site তৈরি করা যাবে কি?

    PBN সাইট থেকে মানি সাইটে কিভাবে লিংক করতে হয়, তার উপর লাইভ ভিডিও তৈরি করলে উপকৃত হতাম।

    প্রত্যেকটা টপিকস এর উপর লাইভ ভিডিও তৈরি করে এই আর্টিকেলে লিংক দিলে আরো উপকৃত হতাম।

    অনেক তথ্যবহুল লিখা, বুকমার্ক করে রেখেছি।

    অনেক অনেক ধন্যবাদ স্যার।

    • অসংখ্য ধন্যবাদ আপনার কমেন্টের জন্য। জ্বি যদি এক্সপায়ার্ড ডোমেইনটি ভালো হয় অর্থাত DA ভালো এবং ব্যাকলিংক প্রোফাইল ভালো হলেই আপনি ঐটি ব্যবহার করে মানি সাইট বানাতে পারেন। আর আমি চেষ্টা করবো আগামীতে অফ-পেজ এর উপড় বিস্তারিত ভিডিও দেয়ার জন্য।

  11. sir, slideshare theke kibhabe backlink paoa jacche jodi ektu bolen..website address deoar jayga pacchi na. r ek e document in anno platform guloteo share kora jay linke 4shared,scribd etc

  12. md minhajul islam

    sir youtube channel a 2017-18 তে এসিও এর যে ভিডিও গুলা দিয়েছন অনেকগুলায় প্রধান অংশ গুলা রেকর্ড হয় না।তাই বুজতে পারি না।ত্রুটিমুক্ত ভিডিও কি আছে?

    • আমি আপনার কথাটি বুঝতে পারলাম না। দয়াকরে একটু বুঝিয়ে বলবেন। কোন Video তে সমস্যা আছে।

  13. স্যার, পোস্টটি আমার খুব ভালো লেগেছে। তবে, এই পেজের একেবারে উপরে একটি লাইন “ওয়েবসাইটটিকে SE Friendly করে” যেখানে (SEO) এর পরিবর্তে (SE) লেখা হয়েছে যা আপনার মতো একজন এক্সপার্টের ব্লগে মানানসই নয়। আশা করি আমার কথাটা ক্ষমা দৃষ্টিতে নিবেন এবং এটা সংশোধন করবেন।ধন্যবাদ………

    • ধন্যবাদ আপনার কমেন্টের জন্য কিন্তু এটি আমিই লিখেছি। কারন, SEO I mean Search Engine Optimization Friendly কথাটার কি আসলেই কোনো অর্থ আছে? নাকি Search Engine (SE) Friendly এই কথাটি বেশী অর্থবহ, বলুন। এটি যার যার দেখার দৃষ্টি ভঙ্গি মাত্র।

      • If that is the case then I have nothing to say. All right – I apologize for the temporary disturbance. Thanks all the best

  14. Very very helpful article……Thank you Faruk sir.

  15. খুবই গুরুত্বপূর্ণ পোস্ট

  16. md minhajul islam

    sir 2018 তে 10 number tutorial for seo এটা play hoyna there was problem 404 এটা show করে আপনার চ্যানেলে

  17. Sir, Jodi beginner hisabe site run kori ebong site ta shudhu matro guest post, r major 6/7 social media, forum posting ke target kore link building kori tobe site rank kora kii khub kothin hobe?

    • এটা নির্ভর করে আপনার সাইটের কন্টেন্ট বা নিস এর উপড়। কারন কম্পিটিশন খুব বেশী হলে তখন এটা যথেষ্ট নাও হতে পারে।

  18. Sir, Jodi kono site er jonno shudhu matro guest post, 6/7 valo maner social media, Qus/Ans r forum posting ke target kore link building kore tobe ky site ke rank e ana possible r vlo maner guest post er jonno budget kemon hoya uchit.

    • ভালোমানের গেস্ট পোষ্টের জন্য ২০-৩০ ডলার চার্জ করতে পারেন।

  19. Sir, Forum posting site gulor ekta tutorial pele valo hoy. Log in korar por ki ki korte hobe r ki bhave backlink paoa jabe??

  20. Sir, enjoyed your well-written article. Now I would like to know, I have an online news portal. How can I increase its popularity? Please suggest me. Its on-page seo complete now how can I do off-page for my sit? Please help me out.

    • you should more concern about your news or content. because of Google focused on more and more on your content. After that, you’ll share your content on different social media platform to generate more traffic. And try to create some authority backlinks from .gov or high authority site.

  21. আজ SEO বিষয়ে যা জানি তা আপনার জন্যই। আপনার ভিডিও দেখে শিখেছি । এখন নিজেই কাজ করছি মোটামোটি ভাল অবস্থানে আছে আমার সাইট। এই অফ পেজ চেক লিস্টটা অসাধারন ছিল। ধন্যবাদ গুরু জি। ভাল থাকবেন।আমার একটা অনুরোধ গুগল এলগরিদম নিয়ে একটা পোস্ট করলে অনেক উপকার হত। এক দম আপডেট এলগরিদমটা।

    • আমি খুব শীঘ্রই এ ব্যাপারে লেখার চেষ্টা করবো।

  22. Which WordPress theme are you using?
    Is that free? If, link please!!

  23. Truly awesome and informative post most importantly it is much better than any other paid tutorials. Sir thank you very much for such a descriptive post and please keep up the good work.

  24. MD. Mehedi Hasan

    Hello Sir
    I watched your all SEO tutorial video on youtube.but I was confused about off page.because you didn’t do any practical thing about off page.but by this post I learned many thing about Off page.After watching all of your video I am interested in making a amazon affiliate site.I decide a nishe.but I wants to know as a newbie how much money I have to invest for affiliate?I will do my on page & off page.but I have to buy article from market place.because I am not too good at English.
    My budget is 20000 taka.Is it okey to make a nishe at 20000 taka as a newbie?
    Thanks

    • এই পোষ্ট পড়ে আপনি কিছু শিখতে পেরেছেন এটা জানতে পেরে ভালো লাগছে।

      নিশ সাইটের জন্য একেবারে এক্সাক্ট বাজেট বলাটা আসলে এক্সাক্ট বলা সম্ভব না। তবে আমি ব্যক্তিগত ভাবে মনেকরি ডোমেইন হোস্টিং, সাইট ডিজাইন, আর্টিকেল, টুলস সব মিলিয়ে ৪০-৫০ হাজার টাকা হাতে নিয়ে প্রযেক্ট শুরু করা উচিত। (এটা একান্তই আমার ব্যক্তিগত মতামত) অনেকের কাছেই এটা খুব বেশি আবার অনেকের কাছে এটা কম মনে হতে পারে।

  25. Thank you for your great post

  26. Excellent …You have published many informative article.

  27. ধন্যবাদ আপনাকে এমন একটি পোস্ট শেয়ার করার জন্য আমি আপনার পোস্টটি ফলো করবো এবং এইভাবে এস ইও গুলো করার চেষ্টা করব।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *